চবিতে রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের কাছে স্বারকলিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (ভারপ্রাপ্ত) রেজিস্ট্রারের আপত্তিকর বক্তব্য প্রত্যাহার, মাস্টারদা সূর্যসেন হলের আবাসিক সমস্যা, পানি সংকটের স্থায়ী সমাধানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিতে গেলে উপাচার্য তা গ্রহন করেননি।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টায় ইনস্টিটিউট অব ফরেস্ট্রি এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস বিভাগের শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের কার্যালয়ে স্বারকলিপি নিয়ে গেলে তা গ্রহণ করেনি। তবে শিক্ষার্থীদের দাবী সমূহ মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেন।

এদিকে স্মারকলিপি বিষয়টি অস্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, “কোন স্মারকলিপি নিয়ে তারা আসেনি। মূলত মাস্টার দ্যা সূর্যসেন হলের শিক্ষার্থীরা আমার কাছে হলের অভ্যন্তরীন বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে এসেছে। আমি বিষয়টি দ্রুত সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছি।”

তবে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পাওয়া স্মারকলিপিতে দেখা যায়, দীর্ঘদিন ধরে মাস্টারদা সূর্যসেনের হলের শিক্ষার্থীরা তীব্র পানি সংকটে ভুগছিল। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করার পরেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহন না করায় ইনস্টিটিউট এর বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা গত বুধবার দাবি আদায় লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে অবস্থান নেয়। এমন সময় বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে দাবি আদায়ের কোনো প্রকার আশ্বাস প্রদান না করে ক্ষুদ্ধ হয়ে শিক্ষার্থীদের “বেয়াদব” ও  ইনস্টিটিউট এর সকল শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেয়।

স্মারকলিপিতে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে অধিষ্টিত ব্যক্তির এমন বক্তব্যকে চরম দায়িত্বহীনতা ও  ইনস্টিটিউট এর শিক্ষার্থী হিসেবে বিষয়টি চুড়ান্ত অপমানজনক বলে উল্লেখ করেন।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার পানির দাবিতে বিক্ষোভ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার দ্যা সূর্যসেন হলের ছাত্রীরা। এ সময় তারা প্রায় ৪৫মিনিট মূলফটক অবরোধ করে রাখে।