চবির ২৯৫ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২৯তম বার্ষিক সিনেট সভায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ২৯৫ কোটি ২০ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনিক ভবনের সভাকক্ষে শনিবার সকাল ১১টায় সিনেট সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়।

বরারবরের মত এবারও শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতায় সর্বোচ্চ ১৯১ কোটি ৮০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যা মোট বাজেটের শতকরা ৬৪.৯৭ ভাগ। তবে বাজেটে গত বছরের তুলনায় এবার শিক্ষা ও গবেষণা খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। যেখানে গত বাজেটে বরাদ্দ ছিল মাত্র ৫০ লাখ টাকা । সেখানে এ বছর বাজেটে বরাদ্দ বাড়িয়ে ২ কোটি টাকা করা হয়েছে। যা মোট বাজেটের ০.৬৮ শতাংশ।

বাজেটে বিশ্ববিদ্যালয় মুঞ্জরি কমিশনের পক্ষ থেকে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ২৭৪ কোটি ৭০ লাখ টাকা। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব আয় থেকে বরাদ্দ নেওয়া হয়েছে ২০ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতা খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৯১ কোটি ৮০ লাখ টাকা। শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পেনশন ভাতার ব্যয় ৫২ কোটি ৪৫ লাখ টাকা, শিক্ষা ও আনুষঙ্গিক খাতে ব্যয় ১৯ কোটি ৫১ লাখ টাকা, সরবরাহ ও সেবা (সাধারণ) খাতে ব্যয় ২১ কোটি ৫০ লাখ টাকা, মেরামত, সংরক্ষণ ও পুনর্বাসন খাতে ব্যয় ৩ কোটি ৩৪ লাখ টাকা আর মূলধন মঞ্জুরি (সম্পদ সংগ্রহ ও ক্রয়) খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধৃুরী।

সভায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণার একটি মৌলিক স্থান। দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে গবেষণা কাজকে আরো প্রসারিত করতে হবে। শুধু বিভাগ বাড়ালে ও বেশি বেশি ছাত্র ভর্তি করালে হবে না শিক্ষার মান বাড়ানোর প্রতি নজর দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, “জঙ্গিবাদ যাতে মাথা চারা দিয়ে উঠতে না পারে সে দিকে লক্ষ রাখতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয় সংকোচণ করতে হবে। মাস্টারোল ও এডহক ভিত্তিকে সকল নিয়োগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।”

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার, চট্টগ্রাম ৮ আসনের সংসদ সদস্য মইন উদ্দিন খান বাদল, মহিলা আসন ৩১ এর সংসদ সদস্য ওয়াসিকা আয়শা খান, ডিন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. সিকান্দার চৌধুরী, সিনেট শিক্ষক প্রতিনিধি ও শাহ জালাল হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক সুলতান আহমদ, প্রফেসর সিরাজ উদ দৌল্লাহসহ সিনেটরবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।