চবি স্কুল এন্ড কলেজের ৩৫ তম ব্যাচের পুনর্মিলনী অনুষ্টিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল এন্ড কলেজের ৩৫ তম ব্যাচের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার দিনব্যাপী নানা আয়োজনের মাধ্যমে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মোঃ কামরুল হুদা।

এই সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, “বর্তমানে দেশে যে অস্থিরতা হচ্ছে মানুষের সাথে মানুষের সম্পর্কের বা যোগাযোগের দূরত্বের কারণে। পুনর্মিলনীর মত অনুষ্ঠান বন্ধুত্বকে দৃঢ় করে। সম্পর্কগুলোকে চাঙ্গা করে। এতে করে তরুণ সমাজের মনে জঙ্গিবাদের মত অভিশাপ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে না।”

তিনি আরো বলেন, “বর্তমানে তোমাদের ৩৫তম ব্যাচের অনেকেই কর্মক্ষেত্রে যোগদান করেছ। অনেকেই মাস্টার্স শেষ করেছ বা মাস্টার্সে পড়ছ। তোমরাও কর্মক্ষেত্রে যাবে। এই পুনর্মিলনী তোমাদের ভাতৃত্বকে আরও মজবুত করবে। যা তোমাদের ভবিষ্যৎ জীবনে কাজে দিবে।”

পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে দিনের শুরুতেই সকাল সাড়ে দশটায় কেক কেটে উদ্বোধণ ঘোষণা করেন চবি রেজিস্ট্রার। এরপর কলেজের ৩৫তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ছেলে এবং মেয়ে উভয়ের জন্য ভিন্ন ধর্মী দুই ধরণের খেলার আয়োজন করা হয়। খেলায় উভয় পক্ষে বিজয়ী তিনজনকে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। এছড়াও স্মৃতিচারণমূলক আড্ডায় অতীতের স্মৃতি হাতরে বেড়ান শিক্ষার্থীরা। এসময় অনেকেই আবেগাপ্লুত হয়ে পরেন। দিনশেষে সন্ধ্যায় অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

চবি স্কুল এন্ড কলেজের ৩৫তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী ইয়াকুব রাসেল ও সাদাব সিপার ইব্বান এর পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চবি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক আসহাব উদ্দিন খালেদ, মেডিকেল সেন্টারের প্রধান মেডিকেল অফিসার আবু তৈয়ব, আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উক্ত কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী এম এ খালেদ চৌধুরী। ৩৫তম ব্যাচের পক্ষে বক্তব্য রাখেন আশহাবুর রহমান শোয়েব। অনুষ্ঠানে শতাধিক শিক্ষার্থী প্রাণের উচ্ছাসে মিলিত হন।