চাঁদপুর জেলা স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন এর সভাপতি লিনা

তারেক মাহমুদ সুজনঃ

চাঁদপুর জেলা স্টুডেন্টস’ এসোসিয়েশন এর সভাপতি নির্বাচিত হলেন মাহমুদা আক্তার লিনা। বিদায়ী প্রেসিডেন্ট দিদারুল আলম সজলের দায়িত্বের মেয়াদ শেষে এই পদে এই পদে নির্বাচিত হলেন লিনা ।  লিনা এসোসিয়েশনটির প্রথম নারী সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হলেন। ১৯৯৪ সালের ৩০শে আগস্ট চাঁদপুরের সদর উপজেলায় জন্ম গ্রহণ করেনতিনি। বাবা বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে কর্তব্যরত এবং মা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা হিসেবে দায়িত্বরত আছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিভাগের ১১-১২ সেশনের শিক্ষার্থী লিনা মা-বাবার তিন সন্তানের মধ্যে লিনা সবার বড়। ২০০৯ সালে চাঁদপুর আল-আমিন স্কুল এণ্ড কলেজ থেকে ও ২০১১ সালে চট্টগ্রাম মহসিন কলেজ থেকে যথাক্রমে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন।

নারী সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় এসোসিয়েশনটির সাধারণ সম্পাদক আইন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের মুনির উদ্দিন মাহমুদ সোহান বলেন, ” নারীরা বর্তমানে সবদিকে পুরুষের পাশাপাশি সমান অবদান রেখে চলছে। এটিও তার ব্যতীক্রম নয়। সদস্যরা যাকে যোগ্য মনে করেছে তাকেই সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত করেছে।এখানে নারী পুরুষের বৈসাম্যমূলক কোন দৃষ্টিপাত হয়নি।”

এসোসিয়েশন পূর্বের ন্যায়-ই গতিশীল থাকবে, ভ্রাতৃত্ববোধ সুদৃঢ় হবে এবং প্রতিটি সদস্যের সার্বিক কল্যাণে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট একনিষ্ঠ ভাবে  কাজ করে যাবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

দায়িত্ব পাবার পর জানতে চাইলে লিনা জানান, ‘ নিজের ভালো লাগা আর নিজ জেলার ভাই বোনদের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখার উদ্দেশ্যেই মূলত আমার ‘চাঁদপুর জেলা স্টুডেন্টস’ এসোসিয়েশন’ এ আসা। একই এলাকার সব স্টুডেন্টস একসাথে থাকব, এক সাথে নতুন নতুন কিছু উদ্যোগ নিয়ে তা বাস্তবায়ন  করে যাবো।

নারীদের উদ্দেশ্যে লিনা বলেন, ‘এখনো অনেক নারী সদস্য এসোসিয়েশনে আসতে চায় না।  মেয়ে বলে নিজেদের দূরে সড়িয়ে রাখতে চায়। আমি মনে করি এখন আর মেয়ে বলে নিজেকে গুটিয়ে রাখার সময় নেই। দিন পরিবর্তন হয়ছে, সমাজের একরোখা মানুষদের দৃষ্টিভঙ্গিতে ধীরে ধীরে পরিবর্তন আসছে। তাই আমাদের উচিত প্রত্যেক কাজে পুরুষদের পাশাপাশি নিজ যোগ্যতা দিয়ে নিজের অবস্থান তৈরী করে নেয়া।’

তিনি আরো জানান, “পূর্ব থেকেই এই এসোসিয়েশনটি একটি নারীবান্ধব এসোসিয়েশন আর আমার দায়িত্ব পাওয়ার পর এখন তা আরো জোরদার হবে, নারীদের যথেষ্ট নিরাপত্তাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে তাদের নিজস্ব মতামতকে মূল্যায়ন করা হবে। নারীদের নেতৃত্বে আসার সুযোগ করে দেয়া হবে। তাই আমি প্রতিটি নারী সদস্যদের এসোসিয়েশনে এসে নিজেদের অবস্থান তৈরী করে নেওয়ার জন্যে আহ্বান জানাচ্ছি।”

এছাড়াও কমটির অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পদে আছেন যারা তারা হলেন, সাধারণ সম্পাদক, মুনীর উদ্দিন সোহান, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ সৈকত ,সাফায়াত হোসেন সাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ূন কবির হিমু, মাজারুল ইসলাম বিল্লাল,অর্থ সম্পাদক কাউসার হোসেন, সহ-অর্থ সম্পাদক শাকিব।